সেলুলয়েডের গল্প

Dark Chocolate | একটি সত্য খুনের রহস্য উন্মোচন করে যে মুভি

প্রথমেই বলে নিচ্ছি Dark Chocolate একটি আন্ডাররেটেড ফ্লিম এবং বানিজ্যিক ভাষায় ফ্লপ মুভি, তবে মুভিটি হয়েছে একটি সত্য খুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে । “সিনা বোরা” হত্যাকান্ড নিয়েই এই মুভিটি হয়েছে।

সিনা বোরা হত্যাকান্ডটি ঘটে ২৪ এপ্রিল ২০১২ তে আর অগাস্ট ২০১৫ তে আসামী হিসেবে হাইপ্রোফাইলের – ইন্দ্রানীকে, সৎ বাবা সাঞ্জিব এবং সিনার মা ইন্দ্রানীর ড্রাইভার পিন্টুকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পরে যে ঘটনা উন্মোচিত হয় তা হল ইন্দ্রানীর সন্তান হচ্ছেন শিনা যাকে ইন্দ্রানী নিজের বোন বলে পরিচয় দিত। এর কারন অবশ্য ক্রমশ উন্মুক্ত করতে গেলে দেখা যায়ঃ

শিনা বড়া, ডান পাশে উপরে ইন্দ্রানী, নিচে পিটার, বাম পাশে উপরে মিখাইল এবং নিচে রাহুল

ইন্দ্রানী তার সৎ বাবা দ্বারা রেইপড হয় খুব অল্প বয়সে অসহায় ইন্দ্রানীর মা নিরুপায় হয়ে ইন্দ্রানীকে এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী লোকের  স্বিদার্থের সাথে বিয়ে দেয়, বিয়ের পরে শিনা ও তার ভাই  মিখাইল জন্ম নেয়। স্বিদার্থ কখনই জানতে পারেন না  শিনা এবং মিখাইল দুইজনের কেউই তার নিজের সন্তান না, এদিকে ইন্দ্রানী জিবনের উচ্চাকাঙ্ক্ষার দিকে ঝুকে পরে সে কোলকাতা চলে আসে এবং সেখান থেকে পড়াশোনা করে। ইন্দ্রানী শিনাকে কখনোই মেয়ে হিসেবে পরিচয় দিত না , বোন বলেই সবাইকে পরিচয় করিয়ে দিত।

ইন্দ্রানী পরবর্তীতে সঞ্জিবকে বিয়ে করে কিন্তু ৩ বছরের মাথায় তাদের ডিভোর্স হয়ে যায় এবং পরবর্তীতে ইন্দ্রানী পিটার মুখার্জিকে বিয়ে করেন। সঞ্জিব এবং ইন্দ্রানীর একটি সন্তান থাকে। এদিকে শিনা পড়াশোনা করতে মুম্বাই আসে এবং পিটারের ছেলে রাহুলের সাথে প্রেমের বন্ধনে আবদ্ধ হয়। ঘটনার সত্যতা জানতে পিটার জানান দীর্ঘ ১৩ বছর বিবাহিত জিবনে ইন্দ্রানী কখনোই স্বিকার করেন নাই শিনা তার সন্তান তাই তিনি রাহুল- শিনার সম্পর্ককে স্বাভাবিক ভাবেই নিয়েছিল।

ইন্দ্রানী শিনাকে কেন হত্যা করেছে তার কোন সঠিক কারন এখনো জানা যায় নি- ইন্দ্রানী এই হত্যাকান্ড ঘটাতে তার প্রাক্তন স্বামী সাঞ্জিবকে ডেকে পাঠান এবং ড্রাইভার পিন্টুরামের সাহায্য নেয়। প্রথমে তারা একটি নিরব স্থান খুজে বের করে এরপর শিনাকে কলেজ থেকে গাড়িতে করে নিয়ে আসার পথে তাকে হত্যা করে শিনার হত্যা নিশ্চিত হলে তাকে পিন্টু কুপিয়ে টুকরো টুকরো করে এবং পড়ে পেট্রোল দিয়ে শিনার দেহবশেষ পুড়িয়ে ফেলা হয়। ইন্দ্রানিকে গ্রেফতার করলে সে জানায় পুরো প্ল্যানটি পিটারের ছিল।

শিনার হত্যাকান্ডে এখনো যে সকল ধোয়াশা তার মধ্যে আছে-

  • কেন শিনার আসল বাবা শিনার খোঁজ করেন নাই শিনা নিখোজ হবার পর
  • কেন শিনার নিজের ভাই মিখাইল চুপ ছিল
  • পিটার ১৩ বছরে একবারের জন্যেও কেন ইন্দ্রানীর অতীত জানার চেষ্টা করে নাই
  • শিনা সকল সত্য জানার পরেও কেন পিটারের ছেলে রাহুল যে কিনা সম্পর্কে তার সৎ ভাই তার সাথে সম্পর্কে জড়ায়
    – এই সকল প্রশ্নের উওর এখনো জানা যায় নাই তবে শিনার হত্যাকারীরা সনাক্ত হয়েছে এইটাই  বড়।শিনা বোরা চরিত্রে অভিনয় করেন রিয়া সেন, ইন্দ্রানীর চরিত্রে মহিমা চৌধুরী।