রঙ বাক্স

ই-কমার্স এবং বাংলাদেশ | প্রতিটি সকাল আশার আলো নিয়ে শুরু হয়

লায়লা শারমীন মৌ: টিকে থাকার লড়াই কখনো ই সহজ নয়। Life is nothing but a struggle for existence.
সুতরাং বেঁচে থাকলে লড়াই চালিয়ে যেতেই হবে।থেমে যাওয়ার নাম কখনও উদ্যোক্তা নয়।উদ্যোক্তার নামের পিছনেই লুকিয়ে থাকে টিকে থাকার হাজার লড়াই,হাজার অনুপ্রেরণা।
পজেটিভ চিন্তাই পারে, পথ খুঁজে বের করার উদ্দীপনা যোগাতে।

বর্তমানে গোটা বিশ্ব কোরোনা নিয়ে আতংকিত।এর সবচেয়ে কার্যকরী প্রতিরোধ হলো হোম কোয়ারেন্টাইন। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার ফলে সব কিছুই বন্ধ হয়ে আছে।নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী, ব্যাংক,ওষুধ ছাড়া সব কিছুই বন্ধ। এমতাবস্থায় যে কোন পেশার মানুষই অনিশ্চিত,চিন্তিত,উদ্বিগ্ন। সামনের সময় আসলে কি হবে তা বোঝা দুঃষ্কর।
কিন্তু উদ্যোক্তা মানেই তো যোদ্ধা। শত শত দিনের চেষ্টা,কষ্ট,ব্যর্থতা তারপরই তো সফল হোন একজন উদ্যোক্তা।
তাই পরিস্থিতিকে পজিটিভলি দেখি আমরা।মনোবল না হারাই।হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার সময়টাকে কাজে লাগাই।
দুশ্চিন্তাকে ঝেড়ে ফেলে,

সামনের সময়টাতে কি কি করা যায় তার পরিকল্পনা করে ফেলতে পারি।
পুরো স্টক নতুন করে লিষ্ট করি।
আপাতত কোন নতুন পণ্য স্টক না করি।
সব প্রোডাক্ট রোদে দিয়ে,সুন্দর করে গুছিয়ে ফেলতে পারি,তাহলে পোকা মাকড়ের আক্রমন থেকে রক্ষা পাবে।।
সেইম কালারের প্রোডাক্ট কত পিস আছে,আলাদা আলাদা করে প্যাক করে ট্যাগ করে রাখতে পারি।
ডিফেক্টিভ প্রোডাক্ট সর্ট আউট করে রাখছি, যা দিয়ে অন্য কোন ডিজাইনে কাজে লাগানো যায় কিনা ভাবে দেখবো।যেহেতু কাপড় তাই ইনোভেশন তো করাই যাবে, নাকি বলেন।
কিভাবে নতুনত্ব আনা যায় নতুন প্যাকেজিং এ।
খুব কম সংখ্যক আছে যে গুলো তার জন্য একটা লিষ্ট করেছি,নিজের পেজে এ্যালবাম করে আপলোড দিতে পারেন, ডিসকাউন্ট আকারে।
ট্যাগ গুলে লাগিয়ে ফেলতে পারেন।
এসব কাজের মাধ্যমে কাজের গতি ধরে রাখতে পারি তাহলে হতাশা গ্রাস করবে না বলে আমি আশা রাখি।

লক ডাউন উঠে যাওয়ার পরবর্তী সময়ে, আরো খানিকটা গুছিয়ে পরিস্থিতির সাথে সামঞ্জস্য রেখে পরিকল্পনা করতে হবে।যাতে ক্ষতি পুষিয়ে নেয়া যায়।এবং ভবিষ্যৎ এর জন্য এটা হবে আমাদের জন্য অনেক বড় শিক্ষা। আমরা সেভাবেই প্রস্তুতি নিতে সচেষ্ট হবো।

সবাই সুস্থ ও নিরাপদ থাকুন।
দেশী পণ্যকে জানুন ভালবাসুন,দেশের টাকা দেশেই রাখুন।
ধন্যবাদ।