অনুরণন

আপনাদের মূর্খতা নিয়ে সুখে থাকুন

আফরিন পারভেজঃ জীবনের অনেক কঠিন পরীক্ষায় সবচেয়ে শান্তি হচ্ছে সাপোর্টিং ফ্যামিলি মেম্বারস…
শত বোকামি, গাধামি এবং জেদ এর পরও বাসায় ফিরে আসার মত শান্তির মতো কিছু নেই।
দিন শেষে আমার মায়ের মুখে “আমার মেয়ের মতো নরম আর ভালো মানুষ কেউ নাই ” এটা শোনা যেন জীবনের পরম পাওয়া।
সবাই বলে বাড়ির বউ নাকি কখনো আপন হয় না, কিন্তু আমি কোনোদিন এটা মেনে নিতে পারবো না। কারণ শত কষ্টের মাঝে নওশিন যখন আমাকে এসে জড়িয়ে ধরে, তখন মনে এই সৃষ্টিকর্তা এই আপন মানুষটাকে শুধুমাত্র আমাদের জন্য তৈরি করেছিলেন, ইচ্ছে করে অন্য বাড়িতে জন্ম দিয়েছিলেন যাতে সে এসে আমাদের ছোট্ট পরিবার এ নতুন আমেজ তৈরি করে।
কোনো কারনে মন খারাপ করে থাকলে যখন আভা এসে প্রশ্ন করে, ময়না তোমার মন খারাপ!! তখন মনে হয় কিসের আজাইরা মন খারাপ, এরা থাকতে কিসের মন খারাপ..
পরিবারের সবচেয়ে ছোট্ট সদস্য নিহা অনেক বুঝদার। দিন শেষে ক্লান্ত আর হেরে যাওয়া আমি ঘরে ঢোকার সাথে সাথে যখন ও দৌড়ে আসে আমার ব্যাগ হাতে নিতে, তখন মনে হয় কিসের হেরে যাওয়া!! এদের জন্য প্রতিদিন যুদ্ধ করে বেঁচে থাকতে রাজি আছি।
আমি সবচেয়ে কম কথা বলি আমার বড় ভাইকে নিয়ে, কিন্তু কখনোই আমার মলিন মুখ দেখে তার উদ্বিগ্ন চোখ আমার নজর এড়ায় না, ভাইয়া সবসময় আমার জন্য নিরবে ভাবে। আর আমি হাসিখুশি থাকলে তারচেয়ে বেশি আনন্দিত হয়তো কেউ হয় না।
তাই বলবো, বেঁচে থাকা হয়তো কষ্টের কিন্তু যার পরিবার এমন, সে না কখনো ভেঙে পরে আর না হেরে যায়।
আমিও হারিনি, শুধু কি কি জিততে পেরেছি তা অতি মূর্খ ঠুনকো মানুষেরা বোঝেন না।
আর বোঝার প্রয়োজন ও নেই।
আপনাদের মূর্খতা নিয়ে সুখে থাকুন।