সেলুলয়েডের গল্প

এক মধ্যবিত্ত লোকের বই বের করার সুদীর্ঘ প্রয়াস

সুস্মিতা জাফরঃ একটা ৬ বছর বয়সের বাচ্চা
বাংলাদেশ টেলিভিশন এ দেখা একটা নাটক,,,,,
এক মধ্যবিত্ত লোকের বই বের করার সুদীর্ঘ প্রয়াস, ধৈর্য,,,, লাল কাপড়ে মোড়ানো তার পান্ডুলিপি বয়ে নিয়ে বেড়াতেন প্রকাশকের দ্বারে দ্বারে,,,,,,
একটি গোলাপী মলাট,,,,আর মলাটের পেছনে লোকটার ছোট্ট একটা ছবি,,,,
সেই ৬ বছরের বয়সের পিচ্চি মেয়েটা, সেই নাটক দেখার পর থেকেই স্বপ্ন লালন করতে শুরু করে, তারও নিজের একটা বই লিখবে, একটা মলাট হবে, তাতে পেছনে থাকবে তার ছবি!

কিন্তু মাত্র লিখতে-বানান করে করে পড়তে শেখা ছোট্ট এক বাচ্চার বই কীভাবেই বা বেরুবে, কার কাছে যেয়ে বায়না ধরলে কাজ হবে,,, না বুঝতে পেরে সে নিজেই তার গত বছরের পুরনো হোমওয়ার্ক খাতাগুলো একত্রিত করল। কাকাকে দিয়ে ক্যালেন্ডার এর সাদা পাতা দিয়ে ৪-৫ টা খাতা মলাটও করিয়ে নিল। তাতে বড় বড় করে লিখল, ‘ছড়ার বই’,,,, আর একটা ‘ গল্পের বই’,,,, আরেকটা ‘গানের বই’,,,, এভাবে সে সাহিত্যের সবক্ষেত্রে বিচরণ এর জন্য নিজে নিজেই বানিয়ে নিল বই,,,, ছাপাখানায় ছাপা অক্ষরের পরিবর্তে সে নিজেই হাতে তুলে নিল পেন্সিল,,, কলম,,,, আর একের পর এক লিখতে লাগল ছড়া,গল্প,গান,,,,,!!! সাদা মলাটের নিজ হাতে বানানো বই এর পেছনে সেঁটে দিল নিজের পাসপোর্ট সাইজের ছবি!! এছাড়া খুচরো কাগজে লেখা ছড়া-গল্প জড়ো করে তা লাল টুকটুকে কাপড়ে বেঁধে পরমযত্নে সবাইকে দেখিয়ে বেড়াত— এই যে আমার পান্ডুলিপি!

Can u imagine!!! একটা ৬ বছর বয়সের ছোট্ট এক মেয়ের এমন আজব বুদ্ধি মাথায় আসতে পারে,তা এই ঘটনা নিজের সাথে না ঘটলে আমি তো কোনদিন,কোন কিছুতেই বিশ্বাস করতাম না!!!
খাতাগুলো,,,,মানে হাতে লেখা বইগুলো,,, অনেকদিন সংগ্রহে রেখেছিলাম। তারপর বিভিন্ন সময় বাসা পালটানো,,,, কই গেল সব,কে জানে???

২০২০ বইমেলায়,,,, ৫ম দিনে,,,, পরিবার পাবলিকেশন্স এর ২৭০ নং স্টলে আমার প্রথম বই,,,,

উৎসর্গ — আমার আব্বু-আম্মু,যারা সেই সময় আমার ওই হাতে লেখা ভাংগা ভাংগা শব্দের আনাড়ি পাণ্ডুলিপি অত্যন্ত মনযোগ সহকারে নিয়িমিত না পড়লে,না শুনলে,,,,আজ আমি পত্র-পত্রিকায় লেখালেখির সাহস করে উঠতে পারতাম না,,,,

বই- সোয়েটার
গল্পগ্রন্থ (২৫ টি গল্প)
প্রকাশনী- পরিবার পাবলিকেশন্স
স্টল নং- ২৭০
একুশে বইমেলা ২০২০ এ পাওয়া যাচ্ছে,,,,,,