সেলুলয়েডের গল্প

বিবিয়ানা। বইয়ের কথা

জুহিঁ জাহানঃ শুরুতে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি কারন আসলে আমি কিন্ত লেখক নই শুধু একজন পাঠক মাত্র। তাই ভুলত্রুটি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন আশাকরি।
তবে পাঠকের দায়বদ্ধতা থেকেই একটি লেখার ব্যাপারে মতামত দেয়াকে নিজের একান্ত কর্তব্য বলে স্বীকার করি তাই আজ কিঙ্কর আহসানের নতুন উপন্যাস “বিবিয়ানা” নিয়ে সাহস করে কিবোর্ডে হাত দেয়া।

“অন্বেষা”প্রকাশনী থেকে রহমান আজাদের প্রচ্ছদে “বিবিয়ানা” নামকরণে বইটি প্রকাশিত হয়েছে।বইটির মুদ্রণমূল্য ৪০০টাকা।প্রথম প্রকাশ অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৯।
একটি বইয়ের প্রথম যে ব্যাপারটি নজরে আসে সেটি হল বইয়ের নাম এবং প্রচ্ছদ।প্রথম দেখায় নজর কাড়বার মত প্রচ্ছদে, মনে নাড়া দেয়ার মত একটি নাম।বইটি যারা পড়বেন বা পড়েছেন তারাই বুঝবেন শুধু দৃষ্টিতেই নয় আদপেই এটি সার্থক নামকরণ।

ভেতরের প্রতিটি পাতা আপনাকে মূল্য বিচারে অন্তঃসুখ দেবে এটা আমি হলফ করে বলতে পারি। নতুন বইয়ের গন্ধ আর প্রতিটি রঙিন পাতা ছুঁয়ে দিতেও ভালো লেগেছে আমার।
একটি মানুষ যিনি আজন্ম ভালোইবেসে গেছেন। বিনিময়তো দূর নিজের জন্যও যে ভাবতে হয় এটাও শেখেননি এমন মানুষ বোধহয় লেখকের লেখায় শুধু নয় আমাদের চারপাশেও আছে।তবে আমরা দেখতে ভুলে গেছি।এমনই একজনের প্রিয়জনদের গল্প “বিবিয়ানা”।প্রকৃতপক্ষে আমরা ভুলে গেছি প্রিয়জনের ভালো থাকাতেই নিজের ভালো থাকা।

গল্পটি প্রেমের নয় কিন্ত ভালোবাসার।নিজের নয় কিন্ত কাছের জনের।কথাগুলো লেখকের হলেও যেন একান্ত আপনার।একটি পরিবারের গল্প হলেও গভীরতম মন কাব্যের উপলব্ধি।

স্বার্থান্ধ এই সমাজের প্রত্যেকেই যখন নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত তখনও কেউ কেউ থেকে যান যারা জীবনভর অল্পে তুষ্ট,তারা শুধুমাত্র নিজেকে বিলিয়ে দিতেই জানে।
এরই মাঝে কেউ ভালোবাসে,কেউ স্বপ্ন দেখে,কেউবা হারিয়ে যায়।
নিজেকে নিশ্চিত পরিণতির দিকে ধাবমান দেখেও কেউ নিজের ভালোবাসার মানুষের ভালো থাকার দায়িত্ব নেয়।কেউ প্রেমে আর কেউবা আত্ন উপোলব্ধির আগুনে পুড়ে হয় খাঁটি সোনা।

বইটি পড়ার পর এগুলোই মনে এসেছে বারবার।নিজের স্বার্থত্যাগ করতে অনুপ্রাণিত করেছে।বইটির স্বার্থকতা এখানেই।
“বিবিয়ানা” বইপ্রমীদের সংগ্রহ আরও সমৃদ্ধ করবে বলে আশা রাখছি।

লেখকের কাছে আরও প্রত্যাশা রেখে শেষ করছি খুব প্রিয় একটি উক্তি দিয়ে,”যা কিছু খুব সুন্দর তা ভয়ংকর হয়।এই সুন্দর সব গিলে ফেলে, সর্বনাশ করে।”