অনুরণন

হৃদয়ের কাছাকাছি (শেষ পর্ব)

সাগর হাঁটছে, ঠিক যেদিন মালতীর বিয়ে হয়েছিলো সেদিনের মতো। সেদিনও একা একা সারাটা রাত পথের ধারে হেঁটেছিলো সে। হারাবার কষ্ট যে এতোটা হতে পারে সেটা জানা ছিলো না তার। যদি জানতো তবে কোন ভাবেই এই দিন আসতে দিতোনা।

সেদিন খুব বৃষ্টি হয়েছিলো। সেই বৃষ্টিতে সাগর ভিজেছিলো সারারাত। আকাশটা আজও সেদিনের মতো একটু গুমোট, যেকোন সময় বৃষ্টি হবে। হোক অনেক বৃষ্টি,সব ধুয়ে মুছে যাক। পাওয়া না পাওয়ার সব কষ্ট ধুয়ে যাক। শুধু পরিচ্ছন্ন একটা মনের গভীরে মালতী আজীবন লুকিয়ে থাক ।

বাধন বাইরে অপেক্ষা করছে মালতীর জন্য। সে আজ ইচ্ছা করেই একটু দেরী করছে। সে চেয়েছে সব অনুষ্ঠান শেষ হয়ে যাক। সবাই একটু সময় নিয়ে কথা বলুক, বিশেষ করে মালতী। মালতী আর সাগরের মাঝে আজ আর দাঁড়াতে চায় নি বাধন।

মালতী: ভিতরে গেলে না কেনো? এখানে দাঁড়িয়ে ছিলে কেনো?

বাধন: এইতো এলাম মাত্র,এতো দেরীতে এসে তাদের বিরক্ত করতে মন চাইলো না। চলো এবার।

পুরা রাস্তা দুজনই আর কোন কথা বলেনি। বাসায় ফিরে বাধনই প্রথম কাথা বলতে শুরু করে-

বাধন: কেমন আনন্দ করলে?

মালতী: হু,ভালো

বাধন: অনেক বছর পর সবাই এমন করে সময় পেলে।

মালতী: হ্যা অনেক বছর পর। শুধু সময়ের প্রয়োজনে গল্পের ধরন আলাদা,বাকী সব আগের মতো।

বাধন: আর?

মালতী: আর কি! মজা করলাম,ওদের বাচ্চাগুলোও খুব আনন্দ পেয়েছে।দেখে খুব ভালো লাগলো। তুমি সময় মতো এলে তোমারও ভালো লাগতো।

বাধন: হু, কিন্তু পারলাম না। সাগর কি এসেছিলো?

মালতী: হু এসেছিলো।

বাধন: আজও কি তোমার সাথে কথা বলার সময় হয় নি তার ?

মালতী: নিজের থেকেই ডেকেছিলো আমাকে।

বাধন: আজ যদি শুনতাম আমার বউকে পাত্তা দেয় নি তাহলে আমি নিশ্চিত ওর নাক বরাবর একটা ঘুষি মেরে আসতাম,হা হা হা।

মালতী: ভালো আছে সে তার পরিবার নিয়ে। খুব ভালো চাকুরী, বউটাও পেয়েছে অনেক সুন্দর। পুতুলের মতো একটা মেয়ে সব মিলিয়ে তার ছোট্ট সুখী সংসার।

বাধন: তাই? খুব ভালো তো? তবুও তোমার কথা মনে রেখেছে তাতেই আমি খুশি।

মালতী: বন্ধুকে তো বন্ধু মনে রাখবেই এটাই স্বাভাবিক।
বলতে বলতে মালতী বাইরের দিকে তাকিয়ে ভাবে প্রতিটা মানুষের জীবনেই এমন না পাওয়ার গল্প থাকে।
যেমন ইতি সব পেয়েও কিছুই পায় নি,আর সে সব হারিয়েও পেয়েছে অনেক।

মলতীর মুখে শোনা সাগরের সেই পরিবার তো বাধনের আগেই দেখা হয়ে গেছে!!!! সেতো সাগরের সব খবর আগেই নিয়েছে।
আজ বাধনের বার বার মনে হচ্ছে মালতী যেনো তার কাছে রেখে যাওয়া সাগরের কোন আমানত।

বাধন আনমনে ভাবে আজ যেনো সে সাগরের কাছে হেরে গেলো।

লিখেছেনঃ সাজিয়া আফরিন