সেলুলয়েডের গল্প

একুশে বইমেলায় রুপকথা | বইয়ের কথা

রুপকথা রুবী। লেখালেখির জগতে অনেকদিন থেকেই যার পদচারণা থাকলেও লেখাগুলোকে বাস্তব রূপ দিতে শুরু করেন অমর একুশে বইমেলা, ২০১৬ থেকে। এ বছরেও তার নতুন উপন্যাস থাকছে অমর একুশে বইমেলায়।

পটভূমি : হৃদয়ে যার বাংলাদেশ, তার চেতনায় বাংলার স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ। ৭১,এর সেইদিনে দেশের জন্যে দায়িত্ব পালন করতে ঘরে গর্ভবতী স্ত্রীকে একাকী রেখে ঝাঁপিয়ে পরেছিলো মুক্তিযুদ্ধে, স্ত্রী ও অনাগত সন্তানের প্রতি তার দায়িত্ব তুচ্ছ মনে হয়েছিলো সেদিন। সে আর ফিরে আসেনি।

বাবা মা হারা সন্তানের বাঁধনহারা জীবন, বিশাল শূণ্যতা নিয়ে তার বেড়ে উঠা এবং সারাটা জীবন জুড়ে তার অপ্রাপ্তির উপাখ্যান।

অপরদিকে অনেক স্বপ্ন নিয়ে মধ্যবিত্ত ঘরের মেয়ে উচ্চশিক্ষা নিতে আসে বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনৈতিক টানাপোড়নে তাকে হতে হয় রোজগেরে। তখন কোন ক্ষমতাশালী কর্তৃক সে ধর্ষণের স্বীকার হয়। তাকে মেরে ফেলে ক্ষমতা জোড়ে মামলা চালিয়ে দেয়া হয় ভিন্ন পথে। অপরাধীরা থেকে যায় নিরপরাধী।

গ্রাম থেকে আসা অতি সাধারণ ঘরের সৎ মেধাবী ছেলে সময়ের প্রয়োজনে রক্তে যখন প্রতিশোধের নেশা সে ভিড়ে যায় সেসব অপরাধীদের দলে, হয়ে যায় গুপ্তঘাতকদের নিঃচিহ্ন করতে।

ভাগ্যই যখন হয়ে উঠে খলনায়ক তখন কিছুই করার থাকে না। ভালবাসার মানুষ চোখের সামনে তবু সে যোজন যোজন দূরে হারিয়ে যায়। যেতে যেতে আরো দূরে, চলে যায় সে চোখের আড়ালে।

স্বাধীনতা যুদ্ধ সমাজ বাস্তবতা, জীবনের ঘাতপ্রতিঘাত, প্রেম ভালবাসায় উত্থান পতন, দেশান্তরী মানুষের জীবনের কথা, রাজনৈতিক বৈরি সময় সব কিছু অর্পূব সাহিত্যগুনে চিত্রিত হয়েছে এই উপন্যাসে।

এমনই কিছু বাস্তবমুখী ঘটনা ও উপাখ্যান নিয়ে লেখিকা রুপকথা রুবী তাঁর নিপুণ হাতের দক্ষতায় সৃষ্টি করেছেন তাঁর দ্বিতীয় উপন্যাস “দীপশিখা”।

বইটি পাওয়া যাবে একুশে বইমেলা-২০১৮, নওরোজ কিতাবিস্তান। স্টল নম্বর-১১২, ১১৩, ১১৪।

নিশ্চিত করে বলতে পারি, সাহিত্যগুনে উত্তীর্ণ এই উপন্যাসটি পড়ে আপনিও মুগ্ধ হবেন এবং বুক থেকে বেরিয়ে আসবে তৃপ্তির দীর্ঘশ্বাস।

লিখেছেনঃ ডাঃ তামান্না মাহফুজা তারিন।