'ও ডাক্তার'

মেয়েদের ভার্জিনিটি এবং ব্লিডিং

সাভারের একটা গ্রামে তারা থাকেন, একটা ছোটো সংগঠনে তারা কাজ করেন, তাদের কেউ মানুষের বাসায় কাজ করেন, কেউ গার্মেন্টস এ কাজ করেন, কারো চায়ের টং দোকানে বসেন, কেউ কেউ কৃষি কাজ করেন।

একদিন দেখলাম একজন মহিলা খুব কান্নাকাটি করছেন এবং উনার হাসবেন্ড উনাকে অনেক মারধর করেছে এবং ডিভোর্স দিয়ে দিয়েছে।
আমি জিজ্ঞেস করলাম কেনো ডিভোর্স দিয়েছে,তখন ওই আন্টি বললেন তার হাসবেন্ড ১ বছর ধরে তাকে কথায় কথায় গালাগালি করে, মারধর করে এবং তার চরিত্র নিয়ে কথা বলে কারন প্রথমবার intercourse এর সময় ওই মহিলার ব্লিডিং হয়নি এবং এর পরে কখন ই না।

এরপর বাকিরা একে একে মুখ খুললো, আমি তাদের মেয়ের বয়সী, তারা খুব লজ্জা পাচ্ছিলেন,আমি অনেক কস্টে তাদের শান্ত করলাম।
তারপর যা শুনলাম সেটা পাব্লিকলি বলার মতো না।

এটা আমাদের ভদ্র সমাজের খুব পরিচিত একটা কুসংস্কার, ব্লিডিং না হলে মনে করা হয় মেয়েটা ভার্জিন না,চরিত্র ভালোনা।

এখন একটু যদি scientifically চিন্তা করি তাহলে কিন্তু সব পানির মত পরিস্কার-

১. ব্লিডিং হবে কি হবে না এটা নির্ভর করে HYMEN নামক একটা membrane এর উপর

২.এই membrane টা vaginal opening কে cover করে রাখে

৩.কিন্তু কতটুকু cover করে রাখবে এটা নির্ভর করে এক্টা female person এর বয়স, উচ্চতা, ওজন এবং শরীরের অনেক ফিচারের উপর

৪.Hymen যদি thin হয়, ব্লিডিং না হবার সম্ভাবনা অনেক বেশি,আর thick হলে ব্লিডিং হতে পারে

৫. অনেক female এর জন্মগত ভাবেই hymen থাকে না, so bleeding না হওয়াটাই স্বাভাবিক

৬. যেসব মেয়েরা cycling করে, exercise করে, জিমে যায়, অথবা skipping করে, jumping করে তাদের ওই Hymen নামক পর্দা ভেঙে যায়, so bleeding হওয়ার পসিবিলিটি নাই।

৭.British Medical Journal এর একটা রিসার্চে বললা হয়েছে ” worldwide ৬৩% মেয়েদের first time sexual relation এ bleeding হয়না, এবং the one & only reason is HYMEN MEMBRANE.

৮.আরো একটা রিসার্চে বলা হয়েছে, বয়স যত বাড়বে, যাদের মেমব্রেন আছে, সেটা আরো thin হতে থাকে এবং একটা সময় পর্দাটা ফেটে যাবে, তাহলে কিভাবে ব্লিডিং হবে যদি membrane এ না থাকে?

৯.তার মানে দাঁড়ায় একটা ১৫-১৬ বছরের মেয়ের ফার্স্ট টাইম intercourse এর সময় ব্লিডিং হওয়ার সম্ভাবনা যত বেশি, একটা ২৫-২৬ বছরের মেয়ের ব্লিডিং হওয়ার সমম্ভাবনা ততটাই কম।

যতই বলি আমরা এগিয়ে যাচ্ছি,আমাদের মেন্টালিটি কিন্তু এখনো অনেক নিচে। আর দোষ দিবো কাকে?আমাদের education system টাই অনেকবেশি ত্রুটি পুর্ন! sex education নিয়ে কোথাও পড়ানো হয়না, সিলেবাসে এইসব টপিক তো নাই ই,বরং যে এক দুইটা চ্যাপ্টার আছে menstruation and adolescence নিয়ে, ওইগুলো ও ঠিক মতো পড়ানো হয় না!শুধু গ্রামের মানুষ এরকম না, অনেক শিক্ষিত মানুষ ও এমন,তাদের কাছে ভার্জিনিটি মানেই bleeding!
বুঝাবার মতো কেউ নেই,বলার মত কিছু নেই। কুসংস্কার থেকে বেরিয়ে আসুন। সুখী থাকুন!