হুতুমপেঁচা বলছি

তোমার জীবনের ভয়াবহ ঘটনা কিঃ “আমি ধর্ষিত হই নাই”

ক্রমশ ধর্ষন আমাদের জীবনে একটি ক্যান্সারের মত হয়ে ধেয়ে আসছে, নারীরা যেন পুরুষের চোখে একটি ভোগ্যপণ্য হিসাবেই পরিলক্ষিত হচ্ছে। বিষয়টি এতটাই আমাদের চারপাশে ছড়িয়ে পরেছে যে কোন ভাবেই এর প্রতিকার করা সম্ভব হচ্ছে না। অবস্থানটা এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে যে কোন মেয়েকে প্রশ্ন করা হলে যে তোমার জীবনের একটি ভয়াবহ ঘটনা বলো সে বলবেঃ “আমি ধর্ষিত হই নাই”। আর যে পরিমাণে প্রতিদিন ধর্ষনের নিউজ আমাদের পত্রিকাগুলোতে আসতেছে তাতে মনে হচ্ছে নতুন একটি ধর্ষন দৈনিক আবশ্যক।

সমাজে ধর্ষন কেন বেড়ে গেছে এই সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়ার একটি অন্যতম জনপ্রিয় গ্রুপ হুতুমপেঁচাতে মেয়েদের মতামত চাওয়া হয়। আসুন জেনে নেই ধর্ষন বেড়ে যাবার কারণ হিসাবে হুতুমপেঁচা’র মেয়েরা কি বলেছেঃ

মুন আরিফা দেওয়ানঃ আইন ব্যবস্থার দিলামই আর সামাজিক মূল্যবোধের অভাব অন্যতম কারণ। এছাড়া সস্তা ইন্টারনেট এবং এর খারাপ প্রয়োগ।

জান্নাত ইলাঃ মানুষের মূল্যবোধ কমে যাওয়া।

আয়েশা শারমিন মুনিয়াঃ সহজলভ্য ইন্টারনেট, পরিবারের সাথে কাটানো সময়ের স্বল্পতা, মূল্যবোধের অভাবের কারণে ধর্ষন বেড়ে যাচ্ছে।

আনিকা ইসলাম মৌরিঃ ইন্টারনেট ও বিচারহীনতা।

ইফরানা কাদেরঃ আগে নারীরা একা খুব কম বের হত, এখন একা চলে আর এটার ফায়দা পুরুষেরা উঠায় এর দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি বা আইনি ব্যাবস্থা খুব খারাপ তাই ধর্ষন বেড়ে যাচ্ছে।

যিলফিকা বেগম জুইঃ আমার মতে, অনেক কারণের মধ্যে অন্যতম কারণ হচ্ছে মেয়েদের বেখেয়ালি চলাফেরা।

আইনুন নাহার রায়হানঃ ধর্ষন বেড়ে যাবার কারণ হচ্ছে অপরাধের শাস্তি না হওয়া।

অনামিকাঃ আজ অব্দি ১টাও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হচ্ছেনা তাই ছেলেদের সুপিরিয়রিটি পাওয়ার কমপ্লেক্সে ভোগা।

মনিকা চৌধুরীঃ বিবেক আর মূল্যবোধের অভাব।

ফারজানা জেনিঃ পুরুষেরও যেমন দোষ আছে ঠিক তেমন নারীদেরও অনেক দোষ আছে, কেউই ধোয়া তুলসী পাতা না। তাই উপযুক্ত আইন প্রয়োগ আবশ্যক।

হুতুমপেঁচার মেয়েদের মতামত থেকে এটাই স্পষ্ট যে আইন ব্যবস্থার উন্নতি ছাড়া আসলেই ধর্ষন কিছুতেই ঠেকানো যাবেনা। কোন ভাবেই আমরা নারীরা নিরাপদ হতে পারব না যতদিন পর্যন্ত না আমাদেরকে নিরাপত্তা দেবার জন্য ধর্ষকের একটি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হচ্ছে।

আমদের হুতুমপেঁচা এর সাথেই থাকুন, আরো অন্যান্য মতামত এবং পরামর্শ নিয়ে অচিরেই আপনাদের সামনে উপস্থিত হচ্ছি।

হুতুমপেঁচা বলছি………