হুতুমপেঁচা বলছি

ত্বক ফর্সা করার চেষ্টা ব্যক্ত্বিত্বহীনতার লক্ষণ

এই ফর্সা হবার কারণ কি? আপনাকে সবার সামনে অন্যন্য সুন্দর লাগবে এইতো। নাকি আপনার ধারনা ফর্সা হলে ভাল বর ভাল ঘর ভাল চাকরী জুটবে আপনার কপালে? আসলে কোনটা?

উজ্জ্বল সুন্দর ত্বকের জন্য আমরা এখন পাগল প্রায়। মেয়েদের গ্রুপে যান অথবা কোন রঙ ফর্সাকারি প্রোডাক্ট সেলিং পেইজ গুলোতে দেখবেন মানুষ নিজেকে কত নিচে নামায় ফেলেছে। একটা প্রোডাক্ট যা হয়ত মাত্র ১০০০টাকার শুধুমাত্র মানুষের ডিমান্ডের জন্য বিক্রেতা ২ থেকে ৩ হাজারে তা সেল করছে আর এই ডিমান্ড কেন? কারণ সব্বাই এখন ফর্সা হতে চায়।

কোন মেয়ে কালো হতেই পারবে না সব্বাইকে ফর্সা করে দেয়ার জন্য যেসকল কোম্পানিগুলো আপনাদের কাছে প্রোডাক্ট সেল করে তাদের বিজ্ঞাপনের যে নারীরা থাকে তারা কি আপনার স্বদেশীয়? আপনি যাদের দেখে তাদের মত সুন্দর বা গর্জিয়াস হতে চান সেই মানুষগুলো কিভাবে ক্যামেরার সামনে আসে সেটা কি জানেন? পুরো একটা সেনাবাহিনী লাগে তাদের সামনে আসতে। তাদের চুল ঠিক করার জন্য ৭দিন ধরে তাদের মুখের উপরে এক্সপেরিমেন্ট করা হয়। এরপর তাদের পোশাক বানানো হয় এই পোশাক পড়লে শরীরের কোন কোন জায়গা অনাবৃত থাকবে এবং দেখা যাবে সেইটা বুঝে এরপর সেই সকল জায়গায় মেকাপ দেয়া হয়। এরপর তাদের ৭ দিন আগের থেকেই অতিরিক্ত আলোতে যাতে ত্বকে কোন সমস্যা না হয় এরজন্য ফেইস প্যাক ব্যবহার করানো হয়। এবং পরিশেষে তাদের কে সামনে এনে সেই প্রোডাক্ট ধরায় দিয়ে ছবি তুলে আপনাকে উৎসাহিত করা হয়। আর আপনি সেই ১ মিনিটের বিজ্ঞাপন দেখা মাত্রই নাচতে নাচতে চলে যান তা কিনতে।

এরপর আসেন ইউটিউব চ্যানেলের কথায় প্রোডাক্ট এর রিভিও দেয়া অনেক ভিডিও আছে। বিদেশিদের মধ্যে বেশির ভাগই পেইড ভিডিও বানায় থাকে মানে হল সাপ্লাইয়ারের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তারা ভিডিও বানায় এবং পণ্যের বিক্রি বেড়ে গেলে কিছু শতাংশ তারা নিজের পকেটে রেখে দেয়। দেশীয়রা আবার একধাপ বেশি আগায় তারা কোন কোন সময় পেইড থাকে আর বাকি সময় আবালের মত একটা প্রোডাক্ট একদিন ব্যবহার করে একটা রিভিউ দিয়ে দেয় এরপর মানুষ না বুঝে লাইক / সাবস্ক্রাইব করে আর তাদের একাউন্টে ডজন ডজন টাকা জমতে থাকে।

এই যে হাত পা ফর্সা করার জন্য পাগলের মত এইটা ওইটা মেখে থাকেন কখনো কি ভেবেছেন এই হাত –পা না থাকলে কি হবে? এই প্রোডাক্টগুলো ভেজাল হলে এবং কিছু হলে এরপর কি হবে? ভাবেন নাই। মুখের লোম তলার জন্য যে যা বলছে যা ব্যবহার করতে বলছে তাই করছেন কেন? নিজের কাছে নিজের উত্তরটা দেন? আসল উত্তরটা হচ্ছে আপনার নিজের ব্যক্তিত্বর বড়ই অভাব।

আপনি মানসিক ভাবে অত্যন্ত দুর্বল না হলে কখনই নিজের রঙের উপরে নির্ভর করে সামনে এগিয়ে যেতে চাইবেন না। আপনি কখনই আপনার সৌন্দর্য্য সবাইকে বিচার করার জন্য মুখে মেকাপ নিবেন না। সৌন্দর্য্য উপভোগের বিষয় এখানে সমালোচনা করে কে কি বলল তাতে  আপনার কিছু হবে না বা হওয়া উচিত না। আপনি কি রঙের ছিলেন তার উপরে নির্ভর করে আপনার জন্ম হয় নাই, আপনি কি রঙের ছিলেন তার উপর নির্ভর করে আপনি স্কুল –কলেজে পরেন নাই, আপনি কি রঙের ছিলেন তার উপরে নির্ভর করে আপনার ভাগ্য নির্ধারন হবে না।

রঙ নিয়ে যা কিছু তৈরি তা এই সমাজের সৃষ্টি আমাদের সমাজে যেই কালো রঙ নিয়ে এত মাথা ব্যাথা সেই কালো রঙ কিন্তু কাবা’র রঙ, সেই কালো গালিচা কিন্তু কাবাকে ঢেকে রাখে সেই কালো কত পবিত্র ,আর আমাদের সামান্য গায়ের রঙ কালো হলেই শুরু ফর্সা হবার জন্য তোরজোড়।

আপনি এখন আমাকে পালটা প্রশ্ন করতেই পারেন যে আমি নিজে কি সুন্দর হতে চাই না? জ্বি অবশ্যই চাই। কিন্তু তাই বলে ফর্সা হবার জন্য আমি মরিয়া হয়ে উঠতে চাই না আমি চাই আমাকে আমার উপস্থাপন কথা বলার ভঙ্গি এসব দিয়েই মানুষ আমাকে চিনুক আমাকে জানুক। আপনি আমাকে আরেকটা প্রশ্ন করতে পারেন যে কেন তাইলে আপনি ফর্সা হতে চাইলে আমি কে বলার? উত্তরটা হচ্ছে আপনি যদি নিজের জন্য এই ফর্সা হতে চাইতেন তাইলে আমি অবশ্যই কিছু বলতাম না কিন্তু আপনি এই ফর্সা হতে চাচ্ছেন অন্যরা যাতে আপনাকে দেখে আপনাকে নিয়ে চর্চা করে এই জন্য। চর্চা করার জন্য গায়ের রঙ পরিবর্তন না করে নিজে যা আছে তাই নিয়ে নিজেকে আইকন বানায় ফেললে দেখবেন আপনাকে নিয়ে আরো বেশি মানুষ চর্চা করবে।

আপনি প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, সুবর্ন মোস্তোফা, অপি করিম, এনাদের কথায় বলুন অপর দিকে ক্লিওপেট্রা, মুঘল সম্রাজ্ঞী যোধা বাই এর কথাই বলুন এনারা কেও কিন্তু ফর্সা ছিলেন না কিন্তু নিজেদের কর্ম দক্ষতায় আজ তারা পরিচিত। এছাড়াও আপনি মাদার তেরেসা, লেডি ডায়না অথবা জে কে রাওলিং এর কথায় বলেন এনাদেরকি তাদের রূপের কারণে আমরা চিনি। অন্য সবার কথায় বাদ দেন নিজের দেশের নিজের দেশপ্রধান কে দেখুন। আমাদের প্রধানমন্ত্রী উনি কি আমাদের জন্য আদর্শ উদাহরণ নয়? উনি কত সাধারণ ভাবে থাকেন এবং তার এই সাধারণ উপস্থাপনের কারণেই আজকে উনি আমাদের হৃদয়ে অবস্থান করছেন। মানুষের মুখে অবস্থান না করে মানুষের হৃদয়ে অবস্থানের চেষ্টা করেন তাইলেই আপনি নিজের পরিচয়ে পরিচিত হতে পারবেন।

নিজেকে শ্রদ্ধা করুন নিজেকে ভালবাসুন এবং ভাল থাকুন।

হুতুমপেঁচা বলছি……