হুতুমপেঁচা বলছি

আরেহ, ধর্ষন করা তো জায়েজ…

একদম সহী হাদিস যেই মেয়ে রাত্রে বাইরে থাকবে তারে আসলেই নিয়া গিয়া দেখায় দেয়া উচিত পুরুষত্ব কারে কয় । আরে মাইয়া মানুষ থাকব মাথায় কাপড় দিয়া বাড়ির চুলার সামনে আর রাত হইলে স্বামীর ঘরে সেবা করবো,এই সব বাল ফেলানো মাইয়া মানুষ হেতেরে কেও কইসেনি রাত্রে বাইরে থাকতে? বাচ্চা জন্ম দিবো আর বাচ্চা পালবো, পড়াশোনা না হয় করসে কিন্তু ক্যান করসে? আরে অগুলো তো করসে পোলাগো- তাদের সোয়ামি গুলোর সাথে ঠিক মত কথা বলতে পারবে সমাজে ঠিক মত সবার সাথে মিশতে পারবে তাই। ওদের এই বালের ডিগ্রি দিয়া কি লাভ ?

আরে ভাই ডাক্তারের কথা আইনেন না কি করসে দেশটারে মহিলা ডাক্তারগুলো দেখছেন এরা আর রাতে বাইরে থাকলে কি আর না থাকলে কি এরা তো এক  একটা “মাল”। এক দুটারে একটু কাত করলেই হইসে একদম ডাইরেক্ট ডাইরেক্ট করে দেয়া যায়- হি হি হি।

ওহ আইসে তসলিমা নাসরিন এর মত কথা কইতে , শালী গতর ঢাকতে পারবে না আর আইসে আমাগোরে শিখাইতে, তোদের ওড়না সরে যায় ক্যান বুক থেকে তাইত আমাগো দু’পায়ের মাঝে ইমানদণ্ড দাঁড়ায় যায়।সব শালিগুলোর জামা কাপড়ের দোষ। আরেহ না ভাই ঐ ৩/৫ বছরের মাইয়া কোন বিষয় না অইগোরেও কাপড় সামলানো শিখাইতে হইবও এক্ষণ থেইকা না হইলে ওইগুলো যে তরতাজা দেখায় ক্যামনে আমার ইমানদণ্ডরে ধইরা রাখি কন? এইসব কি কন আম্মারে দেখসি তো শাড়ি পড়তে আমার আম্মা আর এই মাইয়া কি এক নাকি এই মাইয়া ঘরের বাহির হইসে আমার আম্মায় কি ঘরের বাহির হয় নাকি ,মাঝে মাঝে শপিং করে বাজার সদাই করে – তো তাতে কি হইসে ? আমাগো লগে এই মাইয়াগুলোরে কম্পেয়ার করবেন না এই শালীগুলো হইসে গিয়া মাল একদম দেখলেই- উফফ দিয়া দিতে মন চায়।

বাসে উঠবো –ক্যা? বাসে উঠবো পুরুষ মানুষ এদের আবার আলদা কইরা বসবার দিতে হইবও ক্যা? বাসে কইরা যাইব কই যেখানেই যাউক না ক্যান দিসে একটু গুঁতা বুঝবো আমার পুরুষত্ব ক্যামন। বাসে উইঠা ছেমড়ি মোবাইল গুঁতাই দিছি পেছন দিয়া ঠোয়া , তুইও গুঁতা আমিও গুঁতাই- হা হা হা কি কোন ভায়া? এইসব করার যে কি মজা একদম পিতলামি লাগে। আর শালিগুলো উপরের রড ধইরা খাড়ায় ওড়না সরানো থাকে ওইটা দেইখায় তো খাউজামি করতে মন চায়। আবার জানেন ব্রা এর ফিতা বাইর হইয়া থাকে এরমানেই তো আমাগোরে ইশারা দেয় আমগো বুকে হাত দাও এইটা তো ইচ্ছা করেই করেন। উফফফ- শালা , কথায় কথায় আম্মা –চাচি-মামি-বোইন রে টানবা না ওদের কি ব্রা এর ফিতা দেখানোর জন্য বাহির হয় নাকি এক্সিডেন্টালি বাহির হয়।

আরেহ অফিসে যে মাইয়াটা আছে না অইসে বড় চুল গোলগোল মুখ আরেহ এক দুই দিনেই পটাই ফেলছি একদিন বাসায় রিকসা দিয়া পৌঁছাইয়া দিমু এরপর সিএনজি দিয়া নিবো তখন খালি খেলা হব্বে মামা খেলা যতদিন অফিস ততদিন খেলা। আরেহ ধুর মিয়া বাসায় বউরে কইসি দেরি হয় আর বউ আমারে ছাইড়া যাবো কই আর ঐ মাইয়ারে কইসি বউয়ের লগে ডিস্টিং ডিস্টিং হয়না, বউ ভালা না ব্যস মাইয়া তো মাক্ষান মাম্মা পুরাই গলার মধ্যে গইলা গেছে। হুম্ম মাম্মা এতে কি হইসে মাইয়ারে কইসি আর মাইয়া আসচ্ছে –হেতে আইচ্ছেই তো আমার হাতে ডলা খাইতে , বুঝসও মাম্মা অফিসের ছেমড়িগুলো না সব আসেই ডলা খাইতে।

আরেহ ভায়া স্কুল থেইকা শুরু করে কতই যে দিসি আর করসি হিসাব আছেনি? আরেহ শালা কি বলিস এসব? আমার বউ এরাম হবে ক্যান। আমার বউয়ের সাথে এরাম হয় নাকি হবেও না , আরেহ না মিয়া আমার বউরে দেইখাই ঘরে আনসি এরকম ওর লগে কেও করে নাই অরে তো বোরখাও পড়ায়- কি !!! কি কইলা ওহ , হুম শুনছি তনু নামের মাইয়াটা বোরখা পরত- ধুর বাল তাতে কি হইসে নিশ্চয় এর চুল দেখা গেছিল তাই মরসে। আরেহ না ভায়া মাইয়া হইলে একটা ভাল স্কুলে দিমু ইংলিশ মিডিয়াম হইলে ভাল হয়, যে দিন –কাল পরছে না ভায়া শিক্ষিত হওয়া একটা ব্যাপার আছে না? আমাগো বসের বেডি য্যামনে গলগলায় ইংলিশ কয় ঠিক এরকম আমার মাইয়ারেও বানামু। আর যে দিনকাল পরসে ভাই একা পোলার ইনকামে কি চলবে? মাইয়াগোরেও চাকরীতে আসা দরকার।

আরেহ ভাই বুঝলেন না সম্ভ্রমটাই সব বুঝচ্ছেন- এইযে ভায়া এইযে দেখচ্ছেন নি বাজার কইরা বেডি দরদরায় ঘামে আর আঁচল সরাইয়া মুখ মুছে ওইটা বাহানা পেট দেখায় পেট – উফফফ আজকা আরেকবার দলা দিতে ইচ্ছা হইতেছে ওইদিন আম্মার লগে বাজারে গেছিলাম যে গরম গিয়া এই মালরে দেখছি আম্মার লগে কথা কয় আর ঘাম মুছে আমি পিছন দিয়া একবার দিছি বুঝচ্ছেন- হিহিহি। আমার হাত লাগাইনা মাইয়া।

কি কন ভায়া- দেশের মানুষের হেফাজত ??? রক্তের নদী বহাইয়া দিমু সবার আগে আমি খাড়ামু ভাই একবার খালি আমার দেশ আর দেশের মানুষের কিছু হোক দেইখেন। কি কন এসব আজব কথা আমার ইমানদন্ড খাড়া হয় মানে কি? ইমানদণ্ড সামলাইতে পারি না দেশ ক্যামনে সামলাইবো ?? এসব কি কস? খানকির পোলা, বালের পুরুষ তুই তোর আসলেই ক্ষ্যামতা নাই বাল। মাইয়াগো ঠুসাই যায় এইটা জায়েজ অরা বাইরে বের হইলেই এইটা করন জায়েজ কিন্তু এরসাথে দেশদ্ধারের কি সম্পর্ক? আমরা হইলাম পুরুষজাত আমাগো দেশ আর এইদেশের মানুষের দেখভাল করাই আমাগো কাজ। ওই মাম্মা তোর প্যাঁচাল রাখ ঐ দেখ মাল – লোল বুক দেখচ্ছোস মাম্মা ,আমার তো একদম খাড়ায় গেছে রে………!!!

হুতুমপেঁচা বলছি…..