রঙ বাক্স

ঘরোয়া রুপচর্চা

রুপচর্চায় সব সময় কেনা ফেইসপ্যাক বা রেডিমেট উপকরণ লাগবে এমন কোনো নিয়ম নেই। আমাদের ত্বকের জন্য যা ভালো বা যেটা আমাদের ত্বকের উপকার করবে এমনটা হলেই হলো। আর এমন অনেক উপকরণ আমাদের রান্না ঘরেই থাকে। যা আমরা কখনও ভেবেই দেখিনা যে রুপচর্চায় এসব ব্যবহার করা যায়। যেমন আটা, ময়দা, মধু, চিনি, সুজি, হলুদ, ডিম, বেসন, খাবার সোডা আরো অনেক কিছু। অনেকেই জানে না যে এসব উপাদান দিয়ে অনেক ভালো রুপচর্চা করা সম্ভব। তাই আজ আপনাদের জন্য জানাচ্ছি এমন কিছু উপকরণ যা দিয়ে সহজে রুপচর্চা করতে পারবেন।

রূপচর্চায় আটার ব্যবহার : রান্না ঘরের আটা আপনার ত্বক পরিচর্যায় অনেক সহায়ক হতে পারে। যে ধরনেরই ত্বক হোক না কেন, আটা সব ত্বকের জন্যেই ভালো কাজ করে। ১ টেবিল চামচ পরিষ্কার আটা নিয়ে তার সাথে গরুর কাঁচা দুধ, একটু কাঁচা হলুদ বাটা মিশিয়ে মুখে মেখে ১০/১৫ মিনিট রেখে মুখ ধুয়ে ফেলবেন।
আটা পানিতে ফুটিয়ে পেস্টের মতো করে মুখমণ্ডলে লাগালে মুখের ছিট ছিট তিলে দাগ অনেক হালকা হয়ে যায়।
বেসনের মতো আটা হাতে নিয়ে পানি দিয়ে পেস্ট করে মুখে লাগিয়ে সাবানের মতো মুখ পরিষ্কার করা যায়।
দুধের সরের সাথে আটা ও কাঁচা হলুদ মিশিয়ে মুখে মেখে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলবেন।

রূপচর্চায় ময়দার ব্যবহার :প্রত্যেক বাড়িতেই রান্না ঘরে ময়দা পাওয়া যায়। আর এ ময়দা রূপ চর্চার কাজে ব্যবহার করে আপনি হতে পারেন রূপবতী নারী। সাবানের পরিবর্তে ময়দা পানিতে গুলিয়ে হাতে, পায়ে ও মুখে মেখে গোসল করতে পারেন। আবার ময়দা, কাঁচা হলুদ বাটা, দুধের সর মিশিয়ে হাতে, পায়ে, মুখে আস্তে আস্তে মেখে প্রথমে হালকা কুসুম গরম পানিতে, পরে ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে নিলে দেখবেন গায়ের রং কিছু দিনের মধ্যে উজ্জ্বল হয়ে উঠছে।

রূপচর্চায় মধুর ব্যবহার : মধুর গুণের কথা বর্ণনা করে শেষ করা যাবে না। মধু এবং দুধকে বলা হয় বেহেশতের নিয়ামত। মধু ত্বকের জন্যে খুবই উপকারী। তাই অনেক ফেসপ্যাক মধু দিয়ে তৈরি হয়। কয়েক ফোটা মধু ও কাঁচা দুধ একত্রে মুখে মাখলে মুখের রং উজ্জ্বল, কোমল ও মসৃণ হয়।
মধু ও বেসন একত্রে মিশিয়ে ফেসপ্যাক বানিয়ে মুখে মেখে ১৫/২০ মিনিট রেখে হালকা গরম পানি ও পরে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুলে মুখের ত্বক খুব সুন্দর ও মসৃণ হয়।কয়েক ফোটা মধু ও কয়েক ফোটা লেবুর রস, ১ চা চামচ গাজরের রস, ১ চা চামচ ছোলার ডালের বেসন একত্রে পেস্টের মতো করে মুখে মেখে ২০/৩০ মিনিট রেখে স্বাভাবিক পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন মুখ মসৃণ ও কোমল হয়ে উঠবে। এ প্যাকটি শুষ্ক ও স্বাভাবিক ত্বকের জন্যে উপকারী।

খাবার সোডার ব্যবহার : অনেকের মুখের দাঁত দেখতে হলদেটে ভাব। তারা যদি একটু খাবার সোডা দাঁত মাজার ব্রাশের ওপর নিয়ে মেজে নেন, তাহলে দেখবেন দাঁতগুলো মুক্তোর মতো ঝকঝকে হয়ে উঠেছে। তবে, এ পদ্ধতিটি আপনি রোজ করতে যাবেন না। এতে মাঢ়ির ক্ষতি হবে।

লিখেছেনঃ শারমিন ইলা