ইচ্ছেঘুড়ি

লাভ রোড

আসলেই যে আমার শহর ঢাকাতে এমন একটা রাস্তা থাকতে পারে এবং সেখানে হরেক রকমের চা পাওয়া যায় তা আগে জানতাম না। একদম হঠাত করেই আয়া সেখানে। লাভ রোড এর অবস্থান হচ্ছে “মিরপুর স্টেডিয়ামের -৩ নম্বর গেটের অপজিটে। কেন এই রাস্তার নাম লাভ রোড তা আমি জানি না । আমাকে প্রথম সেখানে নিয়ে যায় আমার জুনিয়র লিসা । সে মিরপুরের বাসিন্দা। চা খাওয়ার উদ্দেশ্যেই সেখানে যাওয়া । এরপর আমি আর আমার বন্ধুমানুষ তুহু সেখানে অভিযান চালাই শুধুমাত্র এই রাস্তা সম্পর্কে জানার জন্য।

লাভ রোড এর তেমন কোন বিশেষত্ব নেই শুধুমাত্র এর আকর্ষণীয় এবং ব্যতিক্রমী নাম ছাড়া। রাস্তার দুপাশে বসে মানুষের গল্প আড্ডার আসর। এর মাঝে অবস্থান হচ্ছে এই চায়ের দোকানের । তেমন আহামরি কিছুনা । দোকানের নাম “টি-ট্রি” ব্যাতিক্রম এবং অনেক ধরনের চা সেখানে পাওয়া যায়। প্রথমবার আমি আর লিসা স্পাইসি টি খেয়েছিলাম যাকে “টিএসসি” তে আমরা মরিচের চা নামেই জানি। এইবার আমি আর তুহু “গুড়ের চা” আর “মাশালা চা” সাথে “ফ্রেঞ্জ ফ্রাই” । চায়ের ব্যাপারে আমি অনেক সৌখিন বলে কিনা জানিনা আমার কাছে খুব একটা ভাল লাগে নাই টি-ট্রি এর চা অতিরিক্ত মিষ্টি তবে চায়ের ভেরিয়েশন যাদের অনেক পছন্দ তারা একবার সেখানে গিয়ে দেখে আসতে পারেন। খারাপ বলব না কিন্তু আসলেই অতিরিক্ত তেমন কিছু না। তবে ফ্রেঞ্জ ফ্রাই আমার একদমই ভাল লাগে নাই । এবার দামের কথায় আসি চায়ের দাম ১০টাকা থেকে ৮০টাকার মধ্যে  আর ফ্রেঞ্জ ফ্রাই আর অন্যান্য খাবার আইটেম ২০ থেকে ১০০ টাকার মধ্যে (যদি এর মধ্যে দাম না বাড়ায় থাকে)। লাভ রোড এর গল্পের আসর দেখার জন্য বিকালে যাওয়াই ভাল । অবশ্যই সাথে বন্ধুদের নিয়ে যাবেন কারণ আড্ডা আর চা বন্ধু ছাড়া জমেনা ।

আমার মতে একবার গিয়ে লাভ রোড এর টি-ট্রি থেকে চা খেয়ে আসুন। হয়ত আপনার ভাল লাগতেও পারে এবং আমাদের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করুন।

লিখেছেনঃ আনিকা সাবা